ঢাকাসোমবার , ২৮ জুন ২০২১
  • অন্যান্য

কবুতর পালনে ভালো বাসস্থান নির্মাণে করণীয়

admin
জুন ২৮, ২০২১ ৯:০০ পূর্বাহ্ন । ১৫৪ জন
Link Copied!
agrilive24.com অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন আমাদের ফেসবুক পেজটি


কবুতর পালনে ভালো বাসস্থান নির্মাণে করণীয় যেসব কাজ রয়েছে সেগুলো আমরা অনেকেই জানি না। আমাদের দেশের অনেকেই শখের বসে আবার কেউ কেউ এখন বাণিজ্যিক ভিত্তিতেও কবুতরের পালন করে থাকেন। কবুতর পালন বেশ লাভজনক পেশা। চলুন আজকে জানবো কবুতর পালনে ভালো বাসস্থান নির্মাণে করণীয় সম্পর্কে-

কবুতর পালনে ভালো বাসস্থান নির্মাণে করণীয়ঃ


কবুতর পালনের মাধ্যমে লাভবান হওয়ার জন্য ভালো মানের বাসস্থান খুবই গুরুত্বপূর্ণ। নিষ্কাশন ব্যবস্থা, পর্যাপ্ত সূর্যের আলো এবং বাতাস চলাচল আছে এরকম উঁচু এবং বালুময় মাটিতে কবুতরের ঘর করতে হয়। যা খামারির আবাসস্থল থেকে ২০০ থেকে ৩০০ ফুট দুরে ও দক্ষিণমূখী হওয়া উচিত। মাটি থেকে ঘরের উচ্চতা ২০ থেকে ২৪ ফুট এবং খাচার উচ্চতা ৮ থেকে ১০ ফুট হওয়া ভালো।

একটি খামারের জন্য ৩০ থেকে ৪০ জোড়া কবুতর আদর্শ। কবুতরের খোপ ২ বা ৩ তলা বিশিষ্ট করা যায়। খোপের মাপ প্রতিজোড়া ছোট আকারের কবুতরের জন্য ৩০ সে. মি. x ৩০ সে.মি. x ২০ সে.মি. এবং বড় আকারের কবুতরের জন্য ৫০ সে. মি. x ৫৫ সে.মি. x ৩০ সে.মি.।

অল্প খরচে সহজে ঘর তৈরি এবং স্থানান্তরযোগ্য যা কাঠ, টিন, বাঁশ, খড় ইত্যাদি দিয়ে তৈরি করা যায়। খামারের ভিতরে নরম, শুষ্ক খড়-কুটা রেখে দিলে তারা ঠোঁটে করে নিয়ে নিজেরাই বাসা তৈরি করে নেয়।

ডিম পাড়ার বাসা তৈরির জন্য ধানের খড়, শুকনো ঘাস, কচি ঘাসের ডগাজাতীয় উপাদান দরকার হয়। খোপের ভিতর মাটির সরা বসিয়ে রাখলে কবুতর সরাতে ডিম পাড়ে এবং বাচ্চা ফুটায়।

সাধারণত একটি ভালো জাতের কবুতর বছরে ১২ জোড়া ডিম দিতে সক্ষম। এই ডিমগুলোর প্রায় প্রতিটি থেকেই বাচ্চা পাওয়া যায়। এই বাচ্চা ৪ সপ্তাহের মধ্যেই খাওয়া বা বিক্রির উপযোগী হয়। একটি পূণাঙ্গ বয়সের কবুতর ডিম দেবার উপযোগী হতে ৫ থেকে ৬ মাস মসয় লাগে।

কবুতরের ডিম থেকে মাত্র ১৮ দিনেই বাচ্চা সাধারণ নিয়মে ফুটে থাকে। এই বাচ্চাই ৫ থেকে ৬ মাস পরে নিজেরাই ডিম প্রদান শুরু করে। ফলে কবুতর বংশ পরম্পরায় প্রাকৃতিক নিয়মে নিজেরাই বাড়াতে থাকে নিজেদের সংখ্যা।


আরও পড়ুনঃ বর্ষায় মুরগির খামার ও লিটার ব্যবস্থাপনা যেমন…


পোলট্রি প্রতিবেদন / আধুনিক কৃষি খামার

Credit: Source link