ঢাকাসোমবার , ১৫ নভেম্বর ২০২১
  • অন্যান্য

গরুর ভিটামিন এর অভাবজনিত সমস্যা ও সমাধান

admin
নভেম্বর ১৫, ২০২১ ৬:২৬ পূর্বাহ্ন । ১৪৫ জন
Link Copied!
agrilive24.com অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন আমাদের ফেসবুক পেজটি


গরুর ভিটামিন এর অভাবজনিত সমস্যা ও সমাধান সম্পর্কে খামারিদের জেনেই খামার শুরু করা উচিত। কারণ ভিটামিনের অভাব দেখা দিলে খামারের গরুর নানাবিধ সমস্যা লক্ষ্য করা যায়। আসুন আজকের এ লেখায় আমরা জেনে নিব গরুর ভিটামিন এর অভাবজনিত সমস্যা ও সমাধান সম্পর্কে-

গরুর ভিটামিন এর অভাবজনিত সমস্যা ও সমাধানঃ


ভিটামিন এঃ 


অভাবজনিত লক্ষণঃ


  • এ ভিটামিনের অভাব বেশি হলে পশুর মাংসপেশীর অসামঞ্জস্য দেখা দেয়।
  • পশুর চোখ ফুলে যায় এবং চোখে সাদা পিচুটি জমে।
  • এতে পশুর হাঁটা চলায় অসুবিধা হয়।
  • এই ভিটামিনের অভাবে পশুরাত্রে দেখে না বা অল্প দেখে।
  • এ ভিটামিনের অভাবে পশুর চামড়া খসখসে ও লােম রুক্ষ হয়।
  • সময়মত সঠিক চিকিৎসা না করলে পশু অন্ধ হয়ে যায়।

প্রতিকারঃ


  • জন্মের পরপরই বাচ্চাকে মায়ের শাল দুধ খাওয়াতে হবে।
  • ভিটামিন ‘ এ ’ এর অভাব হলে পশুকে পর্যাপ্ত পরিমাণে কাঁচা ঘাস খাওয়াতে হবে।
  • দানাদার খাবারের সাথে কৃত্রিম ভিটামিন ‘ এ ’ মিশিয়ে খাওয়াতে হবে।

ভিটামিন  ডিঃ


অভাবজনিত লক্ষণঃ


  • পশুর ক্ষুধাহীনতা দেখা দেয়।
  • এই ভিটামিনের অভাবে বাচ্চার হাড় ও দাঁতের গঠন মজবুত হয় না।
  • পশুর প্রজনন ক্ষমতা কমে যায়।
  • হাড় নরম হয়ে বেঁকে যায় , যাকে রিকেটস বলে।
  • পশু না খাওয়ার কারণে ক্রমশ দুর্বল ও কর্মক্ষমহীন হয়ে পড়ে।

প্রতিকারঃ


পশুকে পর্যাপ্ত পরিমাণে সূর্যালােক পাওয়ার ব্যবস্থা করতে হবে তাছাড়া খাবারের সাথে কৃত্রিম ভিটামিন ‘ ডি ’ মিশিয়ে খাওয়ালে অভাব অনেকটা পূরণ করা যায়।

ভিটামিন ইঃ


ভিটামিন ‘ ই ’ এই ভিটামিন পানিতে দ্রবনীয় কিন্তু চর্বিতে দ্রবণীয় নয়।এই ভিটামিনের ইংরেজি নামা ইফাইনল।

টাটকা সবুজ ঘাস , লতাপাতা , অঙ্কুরিত শস্যদানা ও অঙ্কুরিত ডাল শস্যে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ‘ ই ’ পাওয়া যায়।

অভাবজনিত লক্ষণঃ


  • প্রজনন ক্ষমতা কমে যায়।
  • এই ভিটামিনের অভাবে বাচ্চার মাংসপেশীর শৈথিল্য দেখা দেয়।
  • অস্থির মাংসপেশীর সংকোচন , অস্বাভাবিক চলাফেরা।

প্রতিকারঃ


গবাদিপশুকে নিয়মিত কাঁচা ঘাস , লতাপাতা ও অঙ্কুরিত দানা জাতীয় শস্য খাওয়াতে হবে। দানাদার খাবারে সাথে কৃত্রিম ভিটামিন খাওয়ালে ছাগল ও তার দুধের মাধ্যমে বাচ্চা প্রয়ােজনীয় ভিটামিন ‘ ই ‘ পাবে।

ভিটামিন ‘ বি ½

  • ভিটামিন ‘ বি ½, শুটকি মাছ , মাংস , দুগ্ধ ও দুগ্ধজাত খাদ্য , পশু ও মুরগির লিভারে পর্যাপ্ত পরিমাণে পাওয়া যায়।
  • পশুর শরীরে ক্ষুদ্র অণুজীব দ্বারা এই ভিটামিন তৈরি হয়।এই ভিটামিনের অভাবে বয়স্ক পশুর মধ্যে বেশি পরিলক্ষিত হয়।
  • এর অভাবে পশুর রক্তশূণ্যতা দেখা দেয় ও শারীরিক বৃদ্ধি ব্যাহত হয়।

প্রতিকারঃ


পশুর খাদ্যে উপরােক্ত ভিটামিনযুক্ত খাবার যােগ করে এবং প্রয়ােজনে কৃত্রিম ভিটামিন প্রয়ােগ করে এ অভাব মিটানো যায়।


আরও পড়ুনঃ ভারতে চালু হচ্ছে গরুর জন্য অ্যাম্বুলেন্স সেবা


ডেইরি প্রতিবেদন / আধুনিক কৃষি খামার

Credit: Source link