ঢাকাশনিবার , ২৩ অক্টোবর ২০২১
  • অন্যান্য

টাঙ্গাইলে জনপ্রিয়তা পাচ্ছে কেঁচো সার, লাভবান হচ্ছেন চাষিরা

admin
অক্টোবর ২৩, ২০২১ ৪:০৫ পূর্বাহ্ন । ১৩৩ জন
Link Copied!
agrilive24.com অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন আমাদের ফেসবুক পেজটি





দামে কম, অধিক কার্যকারিতা, পরিবেশ বান্ধব ও সাশ্রয়ী হওয়ায় টাঙ্গাইলের বাসাইলে দিন দিন জনপ্রিয়তা পাচ্ছে কেঁচো সারের ব্যবহার। কেঁচো সার ব্যবহারে কম খরচে অধিক ফলন পেয়ে লাভবান হচ্ছেন চাষিরা।

উপজেলার নর্থখোলা গ্রামের কৃষক শরিফুল ইসলাম বলেন, এই সার খুব উপকারী। নিজে ব্যবহার করি। বাকি সার আশে পাশে কৃষকের কাছে বিক্রি করি। প্রথমে কৃষি অফিস থেকে ১০টি রিং আর কেঁচো পাইছিলাম। এরপর চাহিদা দেখে নিজ খরচে আরো ৮ টি রিং বসিয়েছি। 

উপজেলার দাপনজোর গ্রামের ভার্মি কম্পোস্ট সার উৎপাদনকারী কৃষক হোসেন আলী বলেন, একটি রিং এ ৫০ কেজি ভার্মি কম্পোস্ট সার তৈরি করা যায়। কৃষি অফিস থেকে ১০ টা রিং আর কেঁচো পাইছিলাম। এখন আমার কাছে ২৫ টা রিং রয়েছে। এ সারের যে উপকার তাতে আরো রিং বাড়ানো হবে। 

জানা যায়, ৫০ কেজি সার উৎপাদন করতে এক-দেড় মাস সময় লাগে। ৫০ কেজি ভার্মি কম্পোস্ট সার ৩০ শতক জমিতে ব্যবহার করা যায়। যারফলে কৃষকরাও আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন। 

এ বিষয়ে বাসাইল উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা নাজনিন আক্তার বলেন, উপজেলা থেকে বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে কৃষকদের বিনামূল্যে ভার্মি কম্পোস্ট সার তৈরির উপকরণ দিয়েছি। এ সারের উপকারিতা দেখে দিনদিন কৃষকরা নিজ খরচেই এ সার তৈরি করছে।







Credit: Source link