ঢাকাশনিবার , ১৫ মে ২০২১
  • অন্যান্য

দুধের লিটার ৭০ টাকা, খুশি পাবনা ও সিরাজগঞ্জের খামারিরা

admin
মে ১৫, ২০২১ ৫:৩০ পূর্বাহ্ন । ১২২ জন
Link Copied!
agrilive24.com অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন আমাদের ফেসবুক পেজটি


দুধের দাম বৃদ্ধিতে মুখে হাসি ফুটেছে পাবনা ও সিরাজগঞ্জ অঞ্চলের প্রান্তিক খামারিদের। দেশে করোনা ভাইরাসের প্রভাবে দীর্ঘদিন থেকে খামারিরা তাদের উৎপাদিত দুধ বিক্রি নিয়ে বিপাকে পড়লেও খামারিরা প্রতিষ্ঠানগুলোর বাইরে খোলা বাজারে ও ছানা তৈরির কারখানায় ভালো দামে দুধ বিক্রি করে লাভের মুখ দেখছেন। বর্তমানে অঞ্চলভেদে দুধের লিটার ৬০ থেকে ৭০ টাকায় বিক্রি করছেন খামারিরা।

প্রাণিসম্পদ কার্যালয়ের হিসাব অনুযায়ী, পাবনার বেড়া, সাঁথিয়া, ফরিদপুর, ভাঙ্গুড়া ও চাটমোহর এবং সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর ও উল্লাপাড়া উপজেলা নিয়ে গড়ে উঠেছে গরুর দুধ উৎপাদনের প্রধান এলাকা। এসব এলাকায় ছোট-বড় প্রায় ২৫ হাজার দুধের খামার আছে।

খামারিরা জানান, দেশে করোনার কারণে তারা যে ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন তা কাটিয়ে উঠতে অনেক দিন সময় লেগে যাবে। এর আগে একদিকে গরুর খাদ্যের দাম বেশি, অন্যদিকে দুধের দাম কম-সব মিলিয়ে চরম বিপাকে পড়েছিলেন খামারিরা। কিন্তু বর্তমানে দুধের দাম বাড়ার কারণে খামারিরা কিছুটা আশাবাদী হয়েছেন।

বিভিন্ন স্থানের খামারিরা বলেন, রমজান ও ইদ উপলক্ষে অনেক গ্রাহক এখন দুধ কিনছেন। আশপাশের বাজারেও কিছু কিছু দোকান খুলছে। অনেকে সীমিত আকারে হলেও মিষ্টি এবং দধির দোকান খুলেছেন। সে কারণে দুধের চাহিদাও বেড়ে গেছে। এজন্য দামও বেশ ভালো পাওয়া যাচ্ছে।

বগুড়ার উল্লাপাড়া গ্রামের খামারি হাবিবুর বলেন, আমাদের এখানে কিছুদিন আগেও ৪৮ টাকা দরে দুধ বিক্রি করেছি। এখন থেকে ৬০ থেকে ৭০ টাকা দরে প্রতি লিটার দুধ বিক্রি হচ্ছে।

আরেক খামারি মামুন জানান, করোনা ভাইরাস শুরু হওয়ার পর প্রায় একমাস অনেক টাকা লোকসান হয়েছে। রোজা শুরু হওয়ার পর থেকে দুধ এখন ৬০ থেকে ৭০ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে। দেশে যেভাবে গরুর খাদ্যের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে তা বেশি দামে দুধ বিক্রি করতে না পারলে খামারিদের লোকসানে পড়তে হবে।

খামারি ও দুধ সংগ্রহকারী প্রতিষ্ঠাগুলোর কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গোখাদ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় অনেক খামারিই গাভিগুলোকে পরিপূর্ণ খাবার দিতে পারছেন না। এতে দুধের উৎপাদন কমেছে। কেউ কেউ আবার গোখাদ্যের চড়া মূল্যের কারণে গাভির সংখ্যাও কমিয়েছেন। এ ছাড়া বছরের এই সময়ে এমনিতেই গাভির দুধ দেওয়ার ক্ষমতা কিছুটা কমে যায়

Credit: Source link