ঢাকারবিবার , ১৩ জুন ২০২১
  • অন্যান্য

পুকুরে মাছ ভাসার কারণ ও মৎস্য চাষিদের করণীয়

admin
জুন ১৩, ২০২১ ৫:২৫ পূর্বাহ্ন । ৮৭ জন
Link Copied!
agrilive24.com অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন আমাদের ফেসবুক পেজটি


পুকুরে মাছ ভাসার কারণ ও মৎস্য চাষিদের করণীয় যেসব কাজ রয়েছে সেগুলো ভালোভাবে জেনে রাখতে হবে। বর্তমান সময়ে  লাভের আশায় অনেকেই পুকুরে মাছ চাষ করছেন। পুকুরে মাছ চাষের সময় চাষিদের বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। এগুলোর মধ্যে পুকুরে মাছ ভাসা অন্যতম। চলুন আজ জানবো পুকুরে মাছ ভাসার কারণ ও মৎস্য চাষিদের করণীয় সম্পর্কে-

পুকুরে মাছ ভাসার কারণ ও মৎস্য চাষিদের করণীয়ঃ


মাছ ভাসার কারণঃ


১। দীর্ঘ সময় সূর্যালোকের অনুপস্থিতি, মেঘলা আবহাওয়া অথবা  অতিরিক্ত বৃষ্টিপাতের কারণে মাছ ভেসে ওঠতে পারে।

২। বৃষ্টির পানি অম্লীয় ফলে অক্সিজেন এবং পিএইচ কমার পাশাপাশি পুকুরের পানির প্যারামিটার কিছুটা চেঞ্জ হয়ে যায়।

৩। প্লাংকটন সহ অন্যান্য জলজ জীব অক্সিজেন গ্রহণ করায় অক্সিজেন অভাবে  মাছ ভেসে ওঠে।

৪। অধিক মজুদ ঘনত্ব থাকলে পুকুরে অক্সিজেনের অভাব হয়ে মাছ ভেসে ওঠে।

৫। ছোট মাছ বড় মাছের রুপান্তরিত হওয়ার সময় এদের অক্সিজেনের পরিমাণ বেশি লাগে। পুকুরে যথেষ্ট অক্সিজেন না থাকার ফলে এক সময় অক্সিজেন এর অভাবে মাছ ভেসে ওঠে।

৬। মাছ চাষের পুকুরের অতিরিক্ত খাবার দিলে অতিভোজন সহ অতিরিক্ত খাবার পচনের কারণে, তলা অপরিস্কার, জৈব পদার্থের বিষাক্ততা থাকলে অক্সিজেন কমে গিয়ে মাছ ভেসে উঠতে পারে।

৭। পানিতে ঘোলাত্ব  বেশি হলে মাছের ফুলকা আটকে যায়।  মাছের স্বাভাবিক চলাফেরা বিঘ্নিত হয়। সালোকসংশ্লেষণ এ সমস্যা হয়, অক্সিজেন তৈরিতে বাধাগ্রস্ত হয়।

অক্সিজেনের অভাব দূর করার উপায়ঃ


১। পুকুরে পাম্প মেশিনের সাহায্য বা মটরের সাহায্য রিভার্স সিস্টেমের মাধ্যমে পুকুরে পানিতে  স্রোত তৈরি করা যেতে পারে। অথবা  নতুন সরবরাহ করেও অক্সিজেন বাড়ানো যায়।

২। খাদ্য ও সার প্রয়োগ বন্ধ রাখতে হবে। খাবার না দিলে মাছ মরে না কারণ পানিতে প্রাকৃতিক খাবার থাকে।

৩। মজুদ ঘনত্ব বেশি হলে কিছু মাছ  ধরে / আংশিক আহরণ করে বিক্রি করে নিন।

৪। পানিতে বাঁশ পিটিয়ে, হাত দিয়ে  স্রোত তৈরি করে বা সাঁতার কেটে অক্সিজেন তৈরি করতে পারেন, তবে এটাতে কিঞ্চিৎ অক্সিজেন তৈরি হয়।


আরও পড়ুনঃ পাঙ্গাস চাষের পুকুরে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাপনা


লেখাঃ মাহতাবুজ জামান রাফছান


মৎস্য প্রতিবেদন / আধুনিক কৃষি খামার

Credit: Source link