ঢাকারবিবার , ৪ জুলাই ২০২১
  • অন্যান্য

ভেষজ গুণসম্পন্ন উদ্ভিদ হাড়জোড়া

admin
জুলাই ৪, ২০২১ ৩:৫৩ পূর্বাহ্ন । ১১১ জন
Link Copied!
agrilive24.com অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন আমাদের ফেসবুক পেজটি


লতানো কাণ্ডের টুকরো টুকরো অংশ দেখতে অনেকটা জোড়া দেয়া হাড়ের মতোই আর ভেঙ্গে যাওয়া বা মচকানো হাড় জোড়া লাগাতে পারে বলে উদ্ভিদটির নামকরণ হয়েছে হাড়জোড়া।শরীরের কাঠমো দান, শারীরিক গঠন, আকৃতি-অবয়ব, স্পর্শকাতর অঙ্গের সুরক্ষা প্রদানে হাড় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।দুর্ঘটনাজনিত কোনো কারণে শরীরের কোনো অংশের হাড় ভেঙ্গে গেলে সেই ভাঙ্গা হাড় জোড়া লাগা, হাড় ফোলা ও ব্যাথার জন্য হাড়জোড়া একটি অত্যন্ত কার্য্যকরী উদ্ভিদ।

সাধারণত ঝোপে জঙ্গলে গাছটি পাওয়া যায় এবং হাড়েঙ্গা আবার কোনো কোনো গ্রামাঞ্চলে হাড়বন্ধনী হিসেবে মানুষের নিকট পরিচিত।ভেষজ গুণসম্পন্ন লতানো এই উদ্ভিদটির বৈজ্ঞানিক নাম Cissus quadrangularis। আদি নিবাস আফ্রিকা, আরব, মাদাগাস্কার, ভারত, শ্রীলঙ্কা ও জাভা।আমাদের দেশে চট্রগ্রাম, সিলেট, ঢাকা ও সুন্দরবন বনাঞ্চলে উদ্ভিদটি সহজলভ্য।সংস্কৃতে কাণ্ডবল্লী, অস্থিসংহার, গ্রন্থিমান আর ইংরেজিতে Veldt Grape বা Devil’s Backbone নামে পরিচিত।

শাখান্বিত বীরুৎ আরোহী জাতীয় উদ্ভিদটি শুধু ঔষধি গুণাগুণের জন্য নয় এটি আলঙ্কারিক উদ্ভিদ হিসেবে অনেকের নিকট আদৃত।লতানো এই উদ্ভিদটিকে শোভা বর্ধনের জন্য অনেকে বাড়ির বাগানে, ছাদ বাগানে কিংবা বাসা-বাড়িতে টবে লাগিয়ে থাকে।কাণ্ড রসালো, চার কোণাকার এবং পর্বযুক্ত। পাতা সরল, হৃদপিন্ডাকার, ৩-৬ সেন্টিমিটার লম্বা, নরম রসালো, সরু পত্র-পতিমুখ আকর্ষিযুক্ত। পত্রবৃন্ত দেড় সেন্টিমিটার লম্বা, উপপত্র জোড়বদ্ধ, প্রশস্ত, ডিম্বাকার ও সবুজ। মঞ্জরিদণ্ড আড়াই সেন্টিমিটার পর্যন্ত লম্বা হতে পারে। ফুল চার অংশক, আড়াআড়ি ও লালচে রঙের। বৃতি পেয়ালাকার, দল খণ্ডক চারটি, প্রায় দুই মিলিমিটার লম্বা। পুংকেশর চারটি। ফল গোলাকার, পাকলে লাল রঙ ধারণ করে এবং আকারে মটর দানার মতো।পর্বসন্ধিসহ লতার অংশবিশেষ মাটিতে লাগালে সহজেই নতুন গাছ জন্মে।

অনিয়মিত ঋতুস্রাব এবং বেশি রক্তক্ষরণ হলে এই গাছের ডাটার রস খেলে রক্তক্ষরণ বন্ধ হয়ে যায়।হাড়জোড়ার লতা ও পাতার এ্যালকোহলীর নির্যাস উচ্চরক্তচাপ রোধক ও মুত্রবর্ধক হিসেবে কাজ করে।কচি ডাঁটা বদহজম, পেট ফাঁপা ও অন্যান্য পেটের পীড়ায় ওষুধ হিসেবে ব্যবহার হয়।এটি বায়ুনাশক হিসাবেও কাজ করে।


আরও পড়ুনঃ লোকসানের শঙ্কায় ঝালকাঠির পেয়ারা চাষিরা


লেখাঃ সুশান্ত কুমার রায়


প্রকৃতির দান / আধুনিক কৃষি খামার

Credit: Source link