ঢাকারবিবার , ২৫ জুলাই ২০২১
  • অন্যান্য

মল দেখে মুরগির রোগ নির্ণয় পদ্ধতি

admin
জুলাই ২৫, ২০২১ ২:১৪ অপরাহ্ন । ৮৪ জন
Link Copied!
agrilive24.com অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন আমাদের ফেসবুক পেজটি

মুরগির বিভিন্ন রোগ হয়ে থাকে। ব্যকটেরিয়া, ছত্রাক, মাইকোপ্লাজমাসহ অদৃশ্য অণুজীবের সংক্রমণে মারা হাজার হাজার মুরগি। অণুজীবের আক্রমণে মুরগির পায়খানার পরিবর্তন দেখা দেয়। আসুন জেনে নিই মুরগির পায়খানা দেখে রোগ নির্ণয় পদ্ধতি।

চুনা বা সাদা পায়খানা

১।রাণীক্ষীত।
২।আই বি ডি।
৩।গাউট।
৪।কলেরা।
৫।পোলোরাম ডিজিজ।
৬।কিডনিতে সমস্যা।

চুনা বা সাদা পায়খানার সাথে পেষ্ট লাইক সাদা :
৭।আই বি এইচ।
৮।ই কলাই।
৯।পোলোরাম ডিজিজ।

হলুদ পায়খানা
১।পোলোরাম ডিজিজ।
২।টাইফয়েড।
৩।কলেরা।

কমলা পায়খানা
১।নেক্রোটিক এন্টারাইটিস।

সবুজ পায়খানা:
১। এ আই।
২।এন ডি।
৩।সালমোনেলোসিস।
৪।কলেরা।(খাবার কম খেলে)
৫।ই কলাই।
৬।মোইকোটক্সিন।

সবুজাভ হলুদ:
১।।ই কলাই। -পোটোজোয়া।
২।টাইফয়েড।
৩।এন ভি।
৪।ক্লেমাইভিওসিস।

রক্ত
১।আমশয়।

খাবার দানা যুক্ত।
১।ইনডাইজেশন।

মুরগির পায়খানা দেখে রোগ নির্ণয় পদ্ধতি শিরোনামে সংবাদেও তথ্য নাফিজ পোল্ট্রি ফার্ম থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে।

ভিটামিনের অভাবে হাঁস ও মুরগির রোগ-বালাইয়ের লক্ষণ এবং প্রতিকার

ভিটামিনের অভাবে হাঁস ও মুরগির রোগ-বালাইয়ের লক্ষণ এবং প্রতিকার গুলো ভালো করে জেনে রাখা উচিত প্রত্যেক খামারির। কেননা ঠিক মতো সুষম খাবার খাওয়ানো সম্ভব হলেই হাঁস মুরগির উৎপাদন ভালো হবে।

মনে রাখতে হবে হাঁস ও মুরগির উৎপাদনে সফলতা পেতে হলে সবচেয়ে বেশি যেদিকে খেয়াল রাখতে হবে সেটা হলো খাদ্যপ্রাণ বা ভিটামিন জাতীয় খাবার সঠিকভাবে সরবরাহ করতে হবে।

হাঁস-মুরগির উৎপাদনে বা রোগ প্রতিরোধে ভিটামিনের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ভিটামিন বা খাদ্যপ্রাণ মুরগিকে সুস্থ্য, সবল ও কর্মক্ষম রাখে। অন্যান্য খাদ্য উপাদানের তুলনায় এ উপাদানের প্রয়োজনীয় পরিমান অতি কম হলেও বিভিন্ন উপসর্গের সৃষ্টি হয় এবং মৃত্যুহার বৃদ্ধি পায়।

হাঁস-মুরগির জন্য প্রয়োজনীয় খাদ্যপ্রাণ যেমন, ভিটামিন এ, ডি, ই এবং ভিটামিন বি-কমপ্লেক্স। নির্দিষ্ট ভিটামিনের অভাবে নির্দিষ্ট রোগ ও উপসর্গ দেখা দেয়।

লক্ষণ সমূহ: মুরগির দৈহিক বৃদ্ধি ব্যহত হয়। উৎপাদন কমে যায়, উর্বরতা হ্রাস পায়। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। ডিমের খোসা পাতলা হয়। ক্ষুধামন্দা, দূর্বলতা, ওজন হ্রাস ও চর্মপ্রদাহ দেখা দেয়।

প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ: সুষম খাদ্য সরবরাহ করতে হবে। মোরগ-মুরগিকে সবুজ শাক সবজি, হলুদ ভুট্টা, শস্যকনা প্রভৃতি ভিটামিনযুক্ত খাবার সরবরাহ করতে হবে। খামারে হাঁস-মুরগির জন্য বিভিন্ন কৃত্রিম ভিটামিন ব্যবহার করতে হবে।

ভিটামিনের অভাবে হাঁস ও মুরগির রোগ-বালাইয়ের লক্ষণ এবং প্রতিকার সংবাদটির তথ্য প্রাণি সম্পদ অধিদফতরের ই প্রাণি সম্পদ শাখা থেকে নেয়া হয়েছে।

ফার্মসএন্ডফার্মার/ ২৫ জুলাই ২০২১

Credit: Source link