ঢাকাসোমবার , ১৯ এপ্রিল ২০২১
  • অন্যান্য

মাছ চাষের পুকুরে অত্যধিক ফাইটোপ্লাংকটন দেখা দিলে করণীয়

admin
এপ্রিল ১৯, ২০২১ ৮:০৩ পূর্বাহ্ন । ১৭৭ জন
Link Copied!
agrilive24.com অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন আমাদের ফেসবুক পেজটি


মাছ চাষের পুকুরে অত্যধিক ফাইটোপ্লাংকটন দেখা দিলে করণীয় কি কি কাজ রয়েছে সেগুলো মৎস্য চাষিদের জানা দরকার। পুকুরে মাছ চাষে ফাইটোপ্লাংকটন থাকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তবে অত্যধিক ফাইটোপ্লাংকটন উৎপন্ন হলে মাছ চাষে সমস্যা দেখা দিতে পারে। চলুন তাহলে জেনে নেই মাছ চাষের পুকুরে অত্যধিক ফাইটোপ্লাংকটন দেখা দিলে করণীয় সম্পর্কে-

মাছ চাষের পুকুরে অত্যধিক ফাইটোপ্লাংকটন দেখা দিলে করণীয়ঃ


১। তেলাপিয়া , পাবদা,  গুলশা, গলদা চিংড়ি ইত্যাদি যে সকল প্রজাতি ফাইটোপ্লাংটন খায় না বা কম খায় সেসব মাছ চাষের পুকুরে কিছু সংখ্যক কাতলা বা সিলভার কার্প মাছ ছাড়তে হবে।

২। পুকুরে মাছের খাদ্য সরবরাহ আগের চেয়ে কমিয়ে দিতে হবে বা কিছু দিনের জন্য খাদ্য প্রদান বন্ধ রাখতে হবে।

৩। যদি সম্ভব হয় তাহলে মাছ চাষ করা পুকুরে অক্সিজেন সরবরাহের ব্যবস্থা করতে হবে।

৪। ফাইটোপ্লাংটনের ঘনত্ব নিয়ন্ত্রণ না হওয়া পর্যন্ত কোনভাবেই সার প্রয়োগ করা যাবে না। তাছাড়াও অজৈব সারের পরিবর্তে জৈব সার ব্যবহারে আরও গুরুত্ব দিতে হবে।

৫। পানি পরিবর্তনের সুযোগ থাকলে নতুন পানি যোগ করে ঘনত্ব কমিয়ে আনতে হবে।

পানি পরিবর্তনের সম্ভব না হলেঃ 


২ থেকে ৩ পি.পি.এম হারে হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড ( ৬% দ্রবন) প্রয়োগ করা যেতে পারে অথবা ১.৫ পি. পি.এম হরে বি.কে.সি(৮০%) প্রয়োগ করে ফাইটোপ্লাংটন নিধন করতে হবে।

হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড বা বি.কে.সি প্রয়োগের ফলে ফাইটোপ্লাংটন মারা গিয়ে অক্সিজেন কমে যেতে পারে। তাই এরূপ পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে বাতাস সরবরাহ বা পানি সরবরাহের ব্যবস্থা করতে হবে।


আরও পড়ুনঃ যেসব কারণে পাবদা মাছের বৃদ্ধি ব্যাহত হয়


লেখাঃ কবির আহমেদ


মৎস্য প্রতিবেদন / আধুনিক কৃষি খামার

Credit: Source link