ঢাকাশুক্রবার , ৪ জুন ২০২১
  • অন্যান্য

মাঝারি ঘনত্বে কার্প মাছের মিশ্র চাষে করণীয়

admin
জুন ৪, ২০২১ ৬:৪১ পূর্বাহ্ন । ৪৯ জন
Link Copied!
agrilive24.com অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন আমাদের ফেসবুক পেজটি


মাঝারি ঘনত্বে কার্প মাছের মিশ্র চাষে করণীয় যেসব কাজ রয়েছে সেগুলো মাছ চাষিদের ভালোভাবে জেনে রাখা দরকার। নদ-নদী, খাল-বিলে মাছের উৎপাদন কমে যাওয়ার পর থেকেই পুকুরে মাছ চাষ উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। পুকুরে অনেকেই কার্প মাছের চাষ করে থাকেন। আবার মিশ্র চাষ নিয়ে অনেকেই জানতে চান। আজ আমরা জেনে নিব মাঝারি ঘনত্বে কার্প মাছের মিশ্র চাষে করণীয় সম্পর্কে-

মাঝারি ঘনত্বে কার্প মাছের মিশ্র চাষে করণীয়ঃ


এই পদ্ধতি তে চাষ করতে চাইলে যে কোন সাইজের পুকুরে চাষ করা যায়।

এখানে যেহেতু মাছের ঘনত্ব কার্প ফ্যাটেনিং এর চেয়ে বেশি হবে, তাই মাছের গ্রোথ কিন্ত তেমন হবেনা। মাছের যত্ন খুবই গুরুত্বের সাথে নিতে হবে।

মডেল – ১ :


মজুদ কৃত পোনার সাইজ ১৫০ থেকে ৩০০ গ্রাম শতকে রুই ১০ পিচ, মৃগেল / কালিবাউস ৮ পিচ, কাতাল ২ পিচ, সিলভারকার্প ৩ পিচ, কার্পু জাতীয় ৪ পিচ, গ্রাসকার্প দুইশতকে ১ পিচ, স্বরপুঁটি ১০ পিচ।

যখন মাছের সাইজ ৮০০শ গ্রাম থেকে ১ কেজি সাইজের হবে তখন ৪ পিচ রুই, মৃগেল / কালিবাউস ২ পিচ, কাতাল ও সিলভারকার্প ১ পিচ করে, কার্পু ২ পিচ, স্বরপুঁটি ৫ পিচ বিক্রি করে দিবেন। বাকি মাছগুলোকে বছর শেষে বিক্রি করে দিতে হবে।

খাদ্য ব্যবস্থাপনাঃ


১ম মাস দেহের ওজনের ৫%, ২য় মাস ৪%, ৩য় মাস থেকে বিক্রি না করা পর্যন্ত ৩% করে ২৪% প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার দিয়ে যাবেন। ১৫ দিন পর পর পানিতে প্ল্যাঙ্কটন তৈরীর জন্য ফর্মূলা প্রয়োগ করবেন। এটা প্রয়োগের আগে অবশ্যই পানির অবস্হা চেক করে নিবেন, এবং রৌদ্রজ্জ্বল দিনে প্রয়োগ করবেন।

মডেল – ২ :


মজুদ কৃত পোনার সাইজ ২৫০ গ্রাম থেকে ৫০০ গ্রাম। শতকে রুই ৬ পিচ, মৃগেল / কালিবাউস ৪ পিচ, কাতাল দুইশতকে ৩ পিচ, সিলভারকার্প ৩ পিচ, কার্পু জাতীয় ২ পিচ, গ্রাসকার্প দুইশতকে ১ পিচ, স্বরপুঁটি ১০ পিচ, বাটা ১০ পিচ।

৬ মাস পরে বাটা ও স্বরপুঁটি গুলো বিক্রি করে দিয়ে, আবার শতকে ১০ পিচ করে স্বরপুঁটি মজুদ করে দিবেন। এবার কিন্ত বাটা মাছ আর দিবেন না।

খাদ্য ব্যবস্থাপনাঃ


১ম মাস দেহের ওজনের ৫%, ২য় মাস ৪%, ৩য় থেকে ৬ষ্ঠ মাস পর্যন্ত ৩% করে দিবেন। ৭ম মাস থেকে বিক্রি না করা পর্যন্ত ২% করে ২৪% প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার প্রদান করতে হবে।


লেখাঃ সাঈদ সারোয়ার

Credit: Source link