ঢাকাবৃহস্পতিবার , ২১ অক্টোবর ২০২১
  • অন্যান্য

ময়মনসিংহে কেজিতে বিক্রি হচ্ছে খড়, পশু খাদ্যের সংকটে খামারিরা

admin
অক্টোবর ২১, ২০২১ ৭:৪০ পূর্বাহ্ন । ৯২ জন
Link Copied!
agrilive24.com অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন আমাদের ফেসবুক পেজটি

ফাইল ছবি


ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার নিম্নাঞ্চলগুলোতে পশু খাদ্যের অন্যতম অনুষঙ্গ ধানের খড়ের চরম সংকট দেখা দিয়েছে। বিস্তীর্ণ চারণভূমিগুলো বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়ার কারণে শুকনো খড় পানিতে ভিজে নষ্ট হয়ে গেছে। যার ফলে খড়ের তীব্র সংকটের সৃষ্টি হয়েছে। এমতাবস্থায় ২৫ টাকা কেজি দরে খড় কিনতে বাধ্য হচ্ছেন খামারিরা।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসের তথ্যমতে, উপজেলায় মোট গবাদি পশুর খামার রয়েছে ১১৪টি। আর মোট গবাদি পশুর সংখ্যা এক লাখ ৪৪ হাজার। গেলো বোরা মৌসুমের শেষ দিকে আকস্মিক বন্যার কারণে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ায় অনেক জায়গায় গো-খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে।

উপজেলার ধারা, নাগলা, ধুরাইল, শাকুয়াই, বিলডোরা সহ বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে দেখা গেছে অস্থায়ী খড়ের বাজার। সেখানে প্রতি কেজি বোরো ধানের খড় ২৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হতে দেখা যায়। পাঁচ কেজি খড়ের আটি বিক্রি হচ্ছে ১২৫ টাকা দরে। বাজারে খড় আনার সাথে সাথেই সেগুলো বিক্রি হয়ে যাচ্ছে।

খামারি নাজমুল ইসলাম বলেন, আমন ধান ঘরে না ওঠা পর্যন্ত খড় কেনা ছাড়া আর কোনো উপায় নেই। তাই খড় কিনে গরু পালতে হচ্ছে । প্রতিদিন বাজার থেকে ২৫ টাকা কেজি দরে খড় কিনতে হচ্ছে বলেও তিনি জানান।

বিলডোরা এলাকার আরেক খামারি কুদ্দুস মিয়া বলেন, এবার ফসল ঘরে তুলে শেষ করতে পারি নাই, বৃষ্টি শুরু হয়ে গেছে। গরুর ভুঁসি, ফিডের দাম অনেক বেশি। ফলে বাধ্য হয়ে বেশি দামে খড় কিনতে হচ্ছে। গরু নিয়ে মহা সমস্যায় আছি। বিক্রি করে দিলেও ভালো দাম এখন পাবো না।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. শহিদুল আলম বলেন, নিম্নাঞ্চলের অনেক কৃষক এবার আকস্মিক বন্যার কারণে বোরোর খড় শুকাতে পারেননি। সংরক্ষণ করা খড়ও শেষ হয়েছে। এ কারণে উপজেলার কিছু কিছু জায়গায় খড়ের সংকট দেখা দিতে পারে। তবে আমরা কৃষকদের খড়ের বিকল্প হিসেবে কচুড়িপানা খাওয়ানোর পরামর্শ দিচ্ছি।


সূত্রঃ কালের কণ্ঠ

Credit: Source link