ঢাকারবিবার , ২০ জুন ২০২১
  • অন্যান্য

রংপুরে হাঁড়িভাঙ্গা আমের কেনা-বেচা শুরু

admin
জুন ২০, ২০২১ ৫:৫৩ পূর্বাহ্ন । ৮০ জন
Link Copied!
agrilive24.com অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন আমাদের ফেসবুক পেজটি





ফজলুর রহমান, রংপুরঃ রংপুরের সুস্বাদু ও আঁশহীন হাঁড়িভাঙ্গা আম বাজারে ইতিমধ্যেই উঠা শুরু হয়েছে। যদিও কৃষি বিভাগ থেকে বলা হয়েছে- পরিপক্ব হাঁড়িভাঙ্গা আমের জন্য ২০ জুন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। কিন্তু চাষি ও ব্যবসায়ীরা বলছে ভিন্ন কথা তাদের দাবি- আম পরিপক্ব হওয়ায় অনেকটা বাধ্য হয়ে আম বাজারজাত করছি। ইতোমধ্যে হাটে-বাজারে আম বিক্রি শুরু হয়েছে।

হাঁড়িভাঙ্গা আমের বাজারজাত ও ভোক্তা-বিক্রেতার জন্য থাকছে এবারই ‘সদাই অ্যাপ’ সুবিধা চালু করা হয়েছে। এছাড়াও হাঁড়িভাঙ্গার রাজধানীখ্যাত মিঠাপুকুরের পদাগঞ্জ হাটের বাহিরে রংপুর নগরেও চালু করা হয়েছে হাঁড়িভাঙ্গা আমের বাজার। শনিবার (১৯ জুন) বিকেলে নগরের লালবাগ দর্শনা মোড় এলাকায় হাঁড়িভাঙ্গা আমের নতুন বাজারের উদ্বোধন করা হয়।

এ বাজার থেকে দেশের যে কোনো স্থানে আম পাঠাতে পারবেন ক্রেতা-বিক্রেতারা। এছাড়া আম চাষি ও ব্যবসায়ীরা যাতে সঠিক দামে হাঁড়িভাঙ্গা আম বাজারজাত করতে পারেন এজন্য সাহায্য করবে সদাই নামের একটি মোবাইল অ্যাপ।

রংপুর কৃষি বিপণন অধিদফতরের উপপরিচালক অনোয়ারুল হক জানান, রোববার (২০ জুন) থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে গাছ থেকে হাঁড়িভাঙ্গা আম পাড়া শুরু হবে। এজন্য চাষি ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে মতবিনিময় করা হয়েছে এবং হাঁড়িভাঙ্গা বাজারে ২০ জুন থেকে সরবরাহ করতে উৎসাহিত করা হয়েছে।

এবার রংপুরে হাঁড়িভাঙ্গা আমের বাম্পার ফলন হলেও দাম নিয়ে চিন্তিত চাষি ও ব্যবসায়ীরা। বর্তমানে হাঁড়িভাঙ্গা আম ১২০০ টাকা থেকে ১৬০০ টাকা মণ দরে বিক্রি হচ্ছে। পদাগঞ্জহাটে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, থরে থরে আম সাজিয়ে রেখেছেন চাষি ও বিক্রেতারা। আমের সাইজ দেখে ক্রেতারা দরদাম করছেন। পছন্দের আম একটু বেশি দাম হলেও ক্রেতাদের ক্রয় করতে দেখা গেছে। অনেকে আবার ঘণ্টার পর ঘণ্টা বাজার ঘুরে দর কষাকষি করে ভালো আম কেনার চেষ্টা করছেন
আমের মৌসুমে পদাগঞ্জে প্রায় শত কোটি টাকার মতো আম কেনাবেচা হয়ে থাকে। প্রতিবারের মতো এবারও সেখানে দেশের বিভিন্ন স্থানে আম পাঠানোর উদ্দেশ্যে অস্থায়ীভাবে কুরিয়ায় সার্ভিস সেবার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

রংপুর জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর জানিয়েছে, এবার মিঠাপুকুর উপজেলার আখিরাহাট, পদাগঞ্জ, মাঠেরহাট ও বদরগঞ্জ উপজেলার গোপালপুরসহ বেশ কিছু এলাকায় প্রায় ৩ হাজার ৩০০ হেক্টর জমিতে সব জাতের আমের আবাদ হয়েছে। এর মধ্যে আড়াই হাজার হেক্টর জমিতে রয়েছে হাঁড়িভাঙ্গা আম। এবারে উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৪৩ হাজার ৮৩৫ মেট্রিক টন। এর মধ্যে হাঁড়িভাঙ্গা আমের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২৭ হাজার ৯২৫ টন।







Credit: Source link