ঢাকারবিবার , ১৩ জুন ২০২১
  • অন্যান্য

সাতক্ষীরায় পানের দামে ধস, বিপাকে প্রান্তিক চাষিরা

admin
জুন ১৩, ২০২১ ৫:৩২ পূর্বাহ্ন । ১১৬ জন
Link Copied!
agrilive24.com অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন আমাদের ফেসবুক পেজটি




ফাইল ছবি


চলতি মৌসুমে সাতক্ষীরা জেলায় আবহাওয়া ও পরিবেশ অনুকুলে থাকায় পানের ব্যাপক উৎপাদন হয়েছে।   কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী পানের চাষ ও উৎপাদন হলেও করোনাভাইরাস সৃষ্ট পরিস্থিতির কারণে পানের দামে নেমেছে ধস। কিছুদিন আগে পানের বাজার উর্ধ্বমুখী থাকলেও গত কয়েক সপ্তাহে তা নেমে একবারে সর্বনিম্ন পর্যায়ে। এতে করে বিপাকে পড়েছে জেলার প্রান্তিক পান চাষিরা।

কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি মোসুমে উপজেলায় ৪২৫ হেক্টর জমিতে চাষ হয়েছে পান। এজলার সব থেকে বেশি পান চাষ তালা উপজেলার ইসলামকাটি, খলিষখালি, জালালপুর, খেশরা,মাগুরা, খলিলনগর, কুমিরা ও তালা সদর ইউনিয়ন গুলোতে। এখানকার উৎপাদিত পান স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে আশেপাশের জেলা সহ রাজধানীতে বিক্রি  হয় বলে জানিয়েছেন কৃষি অফিস সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে লকডাউনের কারণে পাইকাররা পান কিনতে আসছেনা বলে জানিয়েছেন একাধিক চাষি। এছাড়াও হাটবাজারে বর্তমানে মানুষের অবাধ চলাচল বন্ধ থাকায় ক্রেতা শূন্য হয়ে পড়েছে পানের হাটবাজারগুলো। যারফলে পানির দামে পান বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন চাষিরা।

উপজেলার বাজারগুলোতে বড় পান দুইশ থেকে আড়াইশ টাকায় বিক্রি হলেও বর্তমান বাজার মূল্যে একশ থেকে একশ বিশ টাকা। ছোট পানগুলো পঞ্চাশ টাকা বিক্রি হলেও এখন তার বাজার দর বিশ থেকে পঁচিশ টাকা। পাশাপাশি শ্রমিকের মজুরি বৃদ্ধি, অতিরিক্ত দামে খৈল ও বাঁশের শলা ক্রয়সহ প্রয়োজনীয় উপকরণের বাজার উর্ধ্বমুখী হওয়ায় এতে আরও বিপাকে পড়েছেন তারা।

তালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তারিফ-উল-হাসান জানান, জরুরি কৃষি পণ্যের ক্ষেত্রে কোন বাধা নিষেধ নেই। এক্ষেত্রে পান চালানে কোন সমস্যা হওয়ার কথা না। তবে এ বিষয়ে ব্যবসায়ীদের কোন সিন্ডিকেট আছে কিনা সেটা দেখা হবে বলে জানান তিনি।







Credit: Source link